রবিবার, ২৩ Jun ২০২৪, ১০:২৬ পূর্বাহ্ন

রংপুরের পীরগাছায় এক রাতের ব্যবধানে ১১০ টাকার পেঁয়াজ ২০০ টাকা!

রংপুরের পীরগাছায় এক রাতের ব্যবধানে ১১০ টাকার পেঁয়াজ ২০০ টাকা!

মোস্তাফিজার রহমান, পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি।।

রংপুরের পীরগাছায় এক রাতের ব্যবধানে ১১০ টাকা কেজির পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০০ টাকায়।

আজ শনিবার (৯ ডিসেম্বর) সকালে হঠাৎ করে পীরগাছা বাজারে পেঁয়াজের দামে এমন ঊর্ধ্বগতির চিত্র দেখা গেছে। শুক্রবার (০৮ ডিসেম্বর) যে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ১১০ টাকায়, সেই পেঁয়াজ রাতের ব্যবধানে শনিবার সকালে দাম বাড়িয়ে বিক্রি করা হচ্ছে ২০০ টাকায়। শনিবার সকালে বাজারে এসে পেঁয়াজের দাম শুনে ক্রেতাদের চোখ যেন কপালে উঠে গেছে। বাড়তি দাম শুনে অনেকে পেঁয়াজ না কিনেই ফিরে যাচ্ছেন। আবার কেউ সাধ্যমতো অল্প পরিমাণ পেঁয়াজ কিনছেন। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যটির হঠাৎ এত দাম বাড়ায় ক্রেতাদের মধ্যে ক্ষোভ লক্ষ্য করা গেছে। ক্রেতারা বলছেন, এখন বাজারে নতুন পেঁয়াজ উঠেছে এবং আরও উঠবে, তাহলে দাম বাড়বে কেন?

বাজার করতে আসা ভ্যানচালক মোকসেদ আলী বলেন, আমরা দিনে কামাই করি ৩/৪’শ টাকা। এক কেজি পেঁয়াজের দাম যদি ২০০ টাকা হয়। আমার মতো মানুষের পক্ষে তো এত টাকা দিয়ে তো পেঁয়াজ কিনে তরকারি খাওয়া সম্ভব না। তাই বউকে বলে দিয়েছি আজ থেকে পিয়াজ ছাড়াই তরকারি রান্না করতে।

আরেক ক্রেতা তাজরুল ইসলাম বলেন, নানা অযুহাতে ব্যবসায়ীরা দাম বাড়িয়ে দিলেও দেখার কেউ নেই। সামনে নির্বাচন, তাই এদিকে কারো মাথা ব্যাথা নাই। সবাই ভোট নিয়ে ব্যস্ত, আর ব্যবসায়ীরা দাম বাড়া নিয়ে ব্যস্ত।

ক্রেতা গৃহিণী মিনারা বেগম বলেন, আমরা গরীব মানুষ। ২০০ টাকার কেজির পেঁয়াজ খাওয়া তো আমাদের পক্ষে সম্ভব না। আমাদের কষ্টের কথা কাকে বলবো। পেঁয়াজ কাঁটতে গিয়ে এখন আর চোখ দিয়ে পানি আসে না। এখন পেয়াজ কিনতে গিয়েই দাম শুনে চোখে পানি চলে আসে।

পেঁয়াজ কিনতে আসা অনন্তরাম গ্রামের চাকুরিজীবী মোস্তাক আহমেদ বলেন , আমি ২ কেজি পেঁয়াজ কেনার জন্য বাজারে এসেছিলাম। এসে শুনি পেঁয়াজের কেজি ২০০ টাকা। দাম শুনেই আমার চোখ কপালে উঠেছে । বাসায় ফোন করে গিন্নিকে বললাম পেঁয়াজ জরুরি কিনা। গিন্নি বললো এত দাম দিয়ে পেঁয়াজ কেনার দরকার নাই। চলে আসো। বাসায় অল্প কিছু পেঁয়াজ আছে তিন চার দিন চলবে। এর মধ্যে যদি দাম কমে তখন কিনিও। তাই পেঁয়াজ না কিনেই ফিরে যাচ্ছি।

পীরগাছা বাজারের কাঁচামাল ব্যবসায়ী সাজু মিয়া বলেন, গতকাল রাত পর্যন্ত ১১০ টাকা কেজি পেঁয়াজ বিক্রি করেছি। আজ সকালবেলা পাইকারি কেনা পড়েছে ১৮০ টাকা। তাই আজ ২০০ টাকা কেজি বিক্রি করছি। শুনেছি ভারতের এলসি পেঁয়াজ আসা নাকি বন্ধ। তাই হঠাৎ এই দাম বেড়েছে। হঠাৎ অতিরিক্ত দাম বাড়ায় অনেকে দাম শুনে পেঁয়াজ না কিনেই চলে যাচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024 Rangpurtimes24.Com
Developed BY Rafi IT