মঙ্গলবার, ১৮ Jun ২০২৪, ০৪:১১ অপরাহ্ন

পীরগাছায় জমি নিয়ে বিরোধে ভাই-বোনের দ্বন্দ চরমে 

পীরগাছায় জমি নিয়ে বিরোধে ভাই-বোনের দ্বন্দ চরমে 

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি:

রংপুরের পীরগাছায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে আপন বড় ভাই ও বোনের মধ্যে দ্বন্দ চরম আকার ধারন করেছে।

 

পরিবারের লোকজন দুই দলে বিভক্ত হয়ে একে অপরের উপর হামলা ও জমি দখলের চেষ্টা চালানোর ঘটনায় একটি মামলা এবং একাধিক জিডি রুজু করা হয় বলে, পীরগাছা থানা সূত্র নিশ্চিত করেছে। এদিকে ছোট বোন রহিমা খাতুনের লেলিয়ে দেয়া সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত বড় ভাই খোরশেদ আলম অভিযোগ করে বলেন, হুমকী ধামকীর মূখে তিনি স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন। তাকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য আলটিমেটাম দেয়া হয়েছে।

মামলার বিবরণ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কেকোয়াননু গ্রামের মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে খোরশেদ আলম বাড়ির পার্শ্বে ব্রাহ্মণীকুন্ডা নামক বাজারে ০৭ শতক জমি ক্রয় করে একটি মার্কেট নির্মাণ করেন এবং মার্কেটের দোকানগুলো স্থানীয় ব্যবসায়ীদের ভাড়া দিয়ে চট্টগ্রামে গিয়ে বে-সরকারি কোম্পানিতে চাকুরী করতে থাকেন। তার এই অনুপস্থিতির সুযোগে ওই মার্কেটের জমির উপর নজর পড়ে আপন ছোট বোন রহিমা খাতুন ও ছোট ভাই আশাদুল ইসলামের। তারা ০৬ মাস থেকে মার্কেটের ভাড়াটিয়াদের কাছ থেকে জোরপূর্বক মাসিক ভাড়া উত্তোলন করতে থাকে। এই সংবাদ পেয়ে খোরশেদ আলম চাকুরী ছেড়ে চট্টগ্রাম থেকে বাড়িতে এসে ঘটনার বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে পীরগাছা থানায় অভিযোগ ও সাধারন ডাইরী করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ছোট বোন রহিমা খাতুন ও ছোট ভাই আশাদুল ইসলাম একদল ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী নিয়ে গত ১৮ অক্টোব বড় ভাই খোরশেদ আলমের মার্কেটের দখল নিতে যায়। এতে বাধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা ধারালো খোরশেদ আলম এবং তার পক্ষের রাব্বি মিয়া ও জুয়েল রানা নামের দুই যুবককে বেধরক মারপিট করে। এছাড়াও তারা ভাংচুর করে মার্কেটের ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে। এ-ঘটনায় খোরশেদ আলম জড়িত ছোট ভাই আশাদুল ইসলামসহ ০৭ জনের বিরুদ্ধে পীরগাছা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ১৪, তারিখ- ২১/১০/২০২৩ খ্রিষ্টাব্দ। মামলা দায়েরের পর রহিমা খাতুন ও আশাদুল ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। তারা খোরশেদ আলমকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য সাত দিনের আলটিমেটাম দেয়ার পরও মামলা তুলে না নেয়ায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মামলার সাক্ষী ফারুক হোসেনকে রাস্তার একা পেয়ে বেধরক পেটায় এবং খোরশেদ আলম ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বাড়ি থেকে বের হতে দিবে না বলে জানিয়ে দেয়। এঘটনায় সাক্ষী ফারুক হোসেন পীরগাছা থানায় পৃথক একটি সাধারন ডাইরী করেন।

খোরশেদ আলম বলে, হুমকী ধামকীর মূখে বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন। তিনি আরো বলেন, আসামীদের কথামত মামলা তুলে না নেয়ায় ছোট বোন রহিমা খাতুন তাকে ও তার স্ত্রী-সন্তানদেরকে হয়রানীর জন্য পীরগাছা থানায় একটি সাজানো মামলা দায়েরের পায়তারা চালাচ্ছে।
পীরগাছা থানার এসআই রফিকুল ইসলাম বলেন, তিনি ঘটনার বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024 Rangpurtimes24.Com
Developed BY Rafi IT