সোমবার, ১৫ Jul ২০২৪, ০২:০৪ পূর্বাহ্ন

পীরগাছায় ছেলের দেয়া বেড়ায় বৃদ্ধা মা’সহ অবরুদ্ধ পাঁচ পরিবার

পীরগাছায় ছেলের দেয়া বেড়ায় বৃদ্ধা মা’সহ অবরুদ্ধ পাঁচ পরিবার

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি:
রংপুরের পীরগাছায় পারিবারিক বিরোধের জেরে বাড়ির সামনে বেড়া দিয়ে রাস্তা বন্ধ করে দেয়ায় অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন বৃদ্ধা মা’সহ ৫টি পরিবারের কমপক্ষে ৩০জন সদস্য।

এব্যাপারে থানায় অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার না পাওয়ায় দীর্ঘ ছয় মাস ধরে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ওই পরিবারগুলোর লোকজনকে।

বিকল্প রাস্তা না থাকায় অতিকষ্টে কৃষি জমির আইল দিয়ে চলাচল করলেও গত কয়েক দিনের অব্যাহত বর্ষণে কৃষি জমিগুলো তলিয়ে যাওয়ায় নারী ও শিশুদের নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করতে হচ্ছে ভূক্তভোগি পরিবারগুলোকে। ফলে নিরুপায় হয়ে বৃদ্ধা মা রেজিয়া বেগম (৭০) অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্তির জন্য তার দুই ছেলে ইউনুছ আলী (৪৫) ও জিল্লুর রহমান (৩৮) এর বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছেন।

সরেজমিন পরিদর্শন ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পশ্চিম ব্রাহ্মণীকুন্ডা গ্রামের মৃত হোসেন মন্ডলের স্ত্রী রেজিয়া বেগম এর রয়েছে ৫ ছেলে সন্তান। হোসেন মন্ডল ১৬ বছর আগে স্ত্রী ও ছেলেদের জন্য বসত ভিটার ৭৮ শতক জমি ছাড়াও তাদের চলাচলের সুবিধার্থে রাস্তা হিসেবে ২ শতক জমি রেখে মৃত্যুবরণ করেন। পরবর্তিতে রেজিয়া বেগমের ৫ ছেলের মধ্যে অভিযুক্ত ছেলেদ্বয় পৈত্রিক ৭৮ শতক জমির সামনের অংশে পাঁকা রাস্তার পার্শ্বে এবং অপর ৩ ছেলেসহ তিনি পিছনে বসতবাড়ি নির্মাণ করে বসবাস আসছেন। এছাড়াও পিছনে রয়েছে আরও ২টি দরিদ্র পরিবারের বসবাস। রেজিয়া বেগম ও তার ৩ ছেলে এবং তাদের প্রতিবেশি অপর দু’টি পরিবারের প্রায় ৩০ জন সদস্য বাড়ি থেকে চলাচলের জন্য হোসেন মন্ডলের রেখে যাওয়া ২শতক জমি বংশ পরম্পরায় রাস্তা হিসেবে ব্যবহার করতে থাকেন। এমতাবস্থায় ৬ মাস আগে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে ইউনুছ আলী ও জিল্লুর রহমান ওই রাস্তাটি বন্ধ করে দেয় এবং ইউনুছ আলী রাস্তাটি দখল করে ঘেরা দিয়ে একটি ঘর নির্মাণ করেন। এতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন ওই ৫টি পরিবারের লোকজন। বিকল্প রাস্তা না থাকায় নিরুপায় হয়ে তারা পার্শ্ববর্তি কৃষি জমির আইল দিয়ে কোনমতে চলাচল করতে থাকেন। এই ঘটনার পর রেজিয়া বেগম প্রতিকার চেয়ে পীরগাছা থানায় লিখিত অভিযোগ করলে সংশ্লিষ্ট থানার এসআই সামিউল ইসলাম একাধিকবার রাস্তাটি খুলে দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হলে স্থানীয়ভাবে একাধিকবার শালিস বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতেও সমাধান না হওয়া রেজিয়া বেগম গত ৪ অক্টোবর উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেন।

অভিযুক্ত ইউছুপ আলী বলেন, তিনি রাস্তাটি খুলে দেবেন না। কারন ওই জমিতে তার মালিকানা রয়েছে।
এব্যাপারে পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হক সুমন বলেন, তিনি অভিযোগ পেয়েছেন। বিষয়টি নিরসনের জন্য ছাওলা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নাজির হোসেন দায়িত্ব নিয়েছেন।

এবিষয়ে ছাওলা ইউপি চেয়ারম্যান নাজির হোসেন বলেন, আমি অভিযুক্তদের পরিষদে ডেকেছিলাম। ওরা গিয়েছিল। ওদেরকে জমির কাগজপত্র নিয়ে পরেরদিন ডেকেছিলাম। ওরা আর আসেনি।

ইউএনও মহোদয়ের সাথে আমার কথা হয়েছে। আজ (মঙ্গলবার) ওদেরকে লাস্ট ওয়ার্নিং দিব রাস্তা খুলে দেয়ার জন্য। যদি না দেয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024 Rangpurtimes24.Com
Developed BY Rafi IT