সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৪৫ পূর্বাহ্ন

নড়বড়ে বাঁশের সাঁকোই পীরগাছার ১০ গ্রামের মানুষের ভরসা

নড়বড়ে বাঁশের সাঁকোই পীরগাছার ১০ গ্রামের মানুষের ভরসা

মোস্তাফিজার রহমান, পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি:

বুড়াইল নদীর উপর একটি সেতুর অভাবে চরম ভোগান্তিতে রয়েছেন রংপুরের পীরগাছার ১০টি গ্রামের কোমলমতি শিক্ষার্থীসহ হাজার হাজার মানুষ।

 

ঝুঁকিপূর্ন নড়বড়ে একটি বাঁশের সাঁকোই তাদের একমাত্র ভরসা। এতে প্রায়ই ঘটছে দূর্ঘটনা। বর্ষা মৌসুমে সেই সাঁকোটিও অনেক সময় ভেঙ্গে গেলে, দুর্ভোগের শেষ থাকেনা সেখানকার বাসিন্দাদের। বিশেষ করে এ্যাম্বুলেন্স ঢুকতে না পারায় গর্ভবতী নারী ও গুরুতর রোগীদের হাসপাতালে আনা-নেওয়ার ক্ষেত্রে বিপাকে পড়ছেন তারা। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বারবার আশ্বাসেও সেখানে সেতু নির্মিত না হওয়ায় ক্ষুব্ধ স্থানীয়রা।

জানা যায়, উপজেলার অন্নদানগর ইউনিয়নের জগজীবন গ্রামের দুলু হাজীর বাড়ির পাশে বুড়াইল নদীর উপড় জনগণের চলাচলের দুর্ভোগ দেখে আজ থেকে প্রায় ৩০ বছর আগে তৎকালীন ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন একটি বাঁশের সাঁকো করে দেন। তখন থেকে স্কুল-কলেজ, হাট-বাজার, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ বিভিন্ন কারনে জগজীবন, গোবড়াপাড়া, হরিরাম, জিগাবাড়ী, চিলাখাল, নয়াগ্রাম, রতনপুর, বাগভাসা, জ্ঞানগঞ্জ, জামতলাসহ বিভিন্ন এলাকার প্রায় ২০-৩০ হাজার বাসিন্দা সেই সাঁকো দিয়ে যাতায়াত করে আসছেন।

 

সোমবার (১৮ মার্চ) সকালে জগজীবন গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় ৫০-৬০ মিটার বাঁশের সাকোটি দিয়ে কিছু শিক্ষার্থী হেটে এপার থেকে ওপারে যাচ্ছেন। ভ্যান, রিক্সা, সাইকেল, মোটরসাইকেল ধরে ধরে সাবধানতার সাথে পারাপার করা হচ্ছে।

এ সময় স্থানীয় শহিদুল ইসলাম বলেন, বর্ষা মৌসুমে সাঁকোটি অনেক সময় ভেঙে যায়। তখন মানুষের দুর্ভোগের শেষ থাকেনা। মাঝে মধ্যে দূর্ঘটনাও ঘটে। এখানে এ্যাম্বুলেন্স ঢুকেনা। জরুরি রোগী হাসপাতালে সময়মত নিতে পারিনা।

স্থানীয় স্কুল শিক্ষার্থী খুশি আক্তার বলেন, আমরা যখন এই সাঁকো দিয়ে চলাচল করি, তখন সাঁকোটি অনেক ঢুলাঢুলি করে। আমাদের তখন ভয় লাগে। বর্ষাকালে সাঁকো ভেঙে গেলে আমাদের কলা গাছের ভেলায় করে যাতায়াত করতে হয়। অনেক সময় বই পুস্তক ও কাপড় ভিজে যায়। আমরা সময়মতো স্কুলে যেতে পারিনা। সাঁকোটার বদলে এখানে যদি একটা ব্রীজ হতো তাহলে আমাদের জন্য খুব ভালো হতো।

দেওয়ান সালেহ আহমেদ দ্বিমুখী দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক মোকছেদ আলী বলেন, আমি এই সাঁকো দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করি। সাঁকোটি খুব ঝুঁকিপূর্ণ। এখানে একটা ব্রিজ জরুরি দরকার।

স্থানীয় ফরমান আলী বলেন, এই সাঁকোটি দিয়ে হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করে। এখানে সেতু নির্মাণ ও রাস্তার জন্য আমরা এলাকাবাসী সরকারকে জমিও দিয়েছি। জনপ্রতিনিধিদের আশ্বাস ও সরকারি কতৃপক্ষের অনেকবার মাপজোকের পরও কেন যে এখানে সেতু হচ্ছেনা, কি যে আমাদের অপরাধ, আমরা বুঝছিনা।

 

ইউপি সদস্য রেজাউল করিম রেজা বলেন, এই এলাকার মানুষের দুঃখ দূর্দশা এই বাঁশের সাকো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন অগ্রযাত্রা যেন এখানে এসে থমকে গেছে। আমরা চাচ্ছি এই বাঁশের সাকোটি দ্রুত পাকা ব্রীজে পরিনত হোক। এখানকার মানুষের দুঃখ দূর্দশা লাঘব হোক।

 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজমুল হক সুমন বলেন, জগজীবন মৌজায় বুড়াইল নদীর উপর সেতু নির্মাণের বিষয়ে আমরা অবগত আছি। এমপি মহোদয়, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে আলোচনা করে ওখানে একটা সেতু নির্মাণের ব্যাপারে খুব শীঘ্রই উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024 Rangpurtimes24.Com
Developed BY Rafi IT