রবিবার, ২৩ Jun ২০২৪, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ন

তিস্তায় ভেসে আসা ৬ ভারতীয়র লাশ ফেরত পুলিশ ও বিজিবি

তিস্তায় ভেসে আসা ৬ ভারতীয়র লাশ ফেরত পুলিশ ও বিজিবি

জেলা প্রতিনিধি লালমনিরহাট।
সিকিমে বাধঁ ভেঙ্গে আকস্মিক বন্যায় বাংলাদেশের লালমনিরহাটে তিস্তা নদীতে ভেসে আসা ভারতীয় আরও এক নাগরিকের অজ্ঞত (৪০) মরদেহে বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ ও বিজিবি।
এ পর্যন্ত  সিকিমের বন্যার পানিতে ছয় জনের মরদেহ তিস্তা নদী থেকে উদ্ধার করে ভারতীয়  বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ ও বিজিবি।এদের পরিচয় জানা যায়নি।
শনিবার (৭ অক্টোবর)  রাত সাড়ে ৭টার লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পোস্টমর্টেম শেষে বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ হস্তান্তর করা হয়।
জানা গেছে, ভারতের সিকিমের বন্যায় বাংলাদেশের তিস্তা নদীতে ভেসে আসে ছয়জনের মরদেহ। এর মধে বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের কিছামত ছাতনাই চর থেকে অজ্ঞত (৪৫) মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। এর পরএকই দিনে
 ৫ অক্টোবর বিকেলে রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার গজঘণ্টা ইউনিয়নের তিস্তা নদীর চর ছালাপাক নামক স্থান থেকে এক যুবকের লাশ অজ্ঞাত (২৮) উদ্ধার করে। একই দিন সন্ধ্যায় গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তারাপুর ইউনিয়নের চরখোদ্দা নামক তিস্তা শাখা নদী হতে এক অজ্ঞাত নারীর (৫২) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। অপরদিকে ৬ অক্টোবর রাতে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার সিন্দুর্না ইউনিয়নের তিস্তা নদীর চরে ধান ক্ষেত থেকে এক অজ্ঞাত পুরুষ (৪০) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ৬ আক্টোবর সকালে লালমনিরহাট সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের হরিণচড়া  অজ্ঞাত এক যুবক(৩৫) ও খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের কালমাটি এলাকায় অজ্ঞত (৫০) মরো দেহ উদ্ধার করে।
বিজিবি সূত্র জানায়, রংপুর তিস্তা ব্যাটালিয়নের (৬১ বিজিবি) সীমান্ত এলাকার বুড়িমারী স্থলবন্দর ও ভারতের চ্যাংড়াবান্ধা শূণ্য রেখা দিয়ে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় ভারতীয় নাগরিক অজ্ঞাত পুরুষের (৪০) লাশ হস্তান্তর করা হয়।
এ সময় ভারতের মেখলিগঞ্জ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুনীল সামান্ত, চ্যাংড়াবান্ধা বিএসএফ কোম্পানী কমান্ডার বার্টু লাল মিনা, মেখলিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাহুল তালুকদার ও বাংলাদেশের বুড়িমারী বিজিবি কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার হাফিজুর রহমান, হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহা আলম, পাটগ্রাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) জয়ন্ত কুমার সাহা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে শুক্রবার রাতে রংপুর ব্যাটালিয়নের (৫১ বিজিবি) পানবাড়ী সীমান্ত এলাকার প্রধান পিলার ৮১২ ও উপপিলার ১ এর শূণ্য রেখার তিনবিঘা করিডর স্থান দিয়ে দুই ভারতীয় নাগরিকের লাশ বিএসএফ এবং ভারতীয় পুলিশের নিকট হস্তান্তর হয়।
শুক্রবার (৬ অক্টোবর)  রাত সাড়ে ৮টার দিকে লালমনিরহাট সদর উপজেলার মোগলহাট ইউনিয়নের চওড়াটারী সীমান্তে দিয়ে দুই ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ হস্তান্তর করা হয়।
এ সময় বাংলাদেশের পক্ষে সদর থানার ওসি ওমর ফারুক ও ভারতের পক্ষে দিনহাটা পুলিশ ক্যম্পের ইনচার্জ সাব ইন্সপেক্টর রাজেন্দ্র তামাংসহ বিএসএফ গিতলদাহ ক্যাম্পের অ্যাসিসট্যান্ট কমান্ড্যান্ট পাপ্পু মিনা উপস্থিত ছিলেন।
বুড়িমারী স্থলবন্দরে ইমিগ্রেশন পুলিশের অফিসার্স ইনচার্জ মুর কবির হাসান জাগো নিউজ কে বলেন, হাতীবান্ধা সিন্দুর্না চরে ধানক্ষেতে পাওয়া অজ্ঞত ওই ব্যক্তির মরদেহ আজ রাত সাড়ে সাতটায় বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024 Rangpurtimes24.Com
Developed BY Rafi IT