সোমবার, ১৫ Jul ২০২৪, ০১:৪০ পূর্বাহ্ন

তারাগঞ্জে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী সভায় জনসমুদ্র

তারাগঞ্জে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী সভায় জনসমুদ্র

নিজস্ব প্রতিবেদক :

 

জমে উঠেছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা। পিছিয়ে নেই রংপুর-২ (তারাগঞ্জ ও বদরগঞ্জ) আসনের প্রার্থীরাও।

 

এই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে ট্রাক প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন বাংলাদেশ কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিশ্বনাথ সরকার বিটু। আরো অংশগ্রহণ করেছেন টানা দুই বারের সংসদ সদস্য ও আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী আহসানুল হক চৌধুরী ওরফে ডিউক চৌধুরী ও জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী আনিসুল ইসলাম মন্ডল।

এরই মধ্যে ২৬ ডিসেম্বর রংপুরের পীরগঞ্জে শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার পথে রংপুর-২ আসনের তারাগঞ্জ উপজেলায় নির্বাচনী জনসভায় নিজ দলীয় প্রতীকের পক্ষে ভোট চেয়ে গেছেন আওয়ামীলীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উক্ত জনসভায় প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী যে বক্তব্য দিয়েছেন তাতে উঠে এসেছে সনাতন (হিন্দু) সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে তার ব্যক্তিগত মনোভাব এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনে তার ক্ষুদ্ধতা।

 

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ইকরচালী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী সভার আয়োজন করা হয়। সভা চলে রাত প্রায় ১২টা পর্যন্ত। চারিদিক থেকে মিছিলে মিছিলে ট্রাক প্রতীকের ভোটার সমর্থকদের অংশগ্রহণের এক পর্যায়ে রাত ৯টার মধ্যেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায় ইকরচালী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ। আনুমানিক প্রায় ২০ হাজারেরও বেশি সমর্থক অংশ নেয় সেই সভায়। সভায় বক্তব্য রাখেন স্থানীয় নেতৃবৃন্দ সহ ভোটার ও সমর্থকরা। উক্ত সভায় প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় ডিউক চৌধুরীর ওই বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বক্তারা।

 

সভায় বিভিন্ন বক্তা বলেন, ডিউক চৌধুরী অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির আতুরঘর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী। তার কাছ থেকে কোন মানুষই ধর্ম বিদ্বেষী বক্তব্য আশা করেন না। কিন্তু তিনি এখানে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দের নির্বাচনে অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে যে ন্যাক্কারজনক বক্তব্য দিয়েছেন তা অত্যন্ত নিন্দনীয়। বক্তারা আরো বলেন, এই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী প্রসঙ্গে ডিউক চৌধুরী বলেছেন নৌকা প্রতীককে পরাজিত করতেই নাকি জাতীয় পার্টি ও একজন হিন্দু ব্যক্তি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন। আসলে তিনি চাননি নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হোক। যেখানে প্রধানমন্ত্রী চান অংশগ্রহণ মূলক নির্বাচন সেখানে ডিউক নামের ওই ব্যক্তি নিজের ব্যক্তিগত স্বার্থে নির্বাচনকে বিতর্কিত করার পাঁয়তারা চালাচ্ছেন। আমরা আজকের এই সভা থেকে প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি সাম্প্রদায়িক চেতনার ব্যক্তিত্ব ডিউক চৌধুরীর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।

 

 

সভায় ইকরচালী ইউনিয়নের টানা তিনবারের নির্বাচিত সাবেক চেয়ারম্যান ও প্রবীণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিশ্বনাথ সরকার বিটু।

 

 

 

আরো বক্তব্য রাখেন তারাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান লিটন, বদরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান, হাড়িয়ারকুঠি ইউপি চেয়ারম্যান ও জাসদ নেতা কুমারেশ রায়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ সভাপতি ও রংপুর জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য সুমনা আক্তার লিলি, তারাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সম্পাদক ডাঃ নজরুল ইসলাম, সয়ার ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন সরকার, সাবেক চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আজম কিরণ, সাবেক ছাত্রলীগ, যুবলীগ নেতা ও বর্তমানে উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা আলমপুর ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম রাসেলসহ আরো অনেকেই।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024 Rangpurtimes24.Com
Developed BY Rafi IT