রবিবার, ১৪ Jul ২০২৪, ১০:৩০ পূর্বাহ্ন

ডিমলায় তিন ইউপি নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ

ডিমলায় তিন ইউপি নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ

জামান মৃধা, ডিমলা (নীলফামারী):

আগামী ১৭ই জুলাই নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার ৩টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে সামনে রেখে তিনপদে ১৩৯জন প্রার্থীর মাঝে বিভিন্ন প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন হয়েছে।

 

সোমবার (২৬শে জুন) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ডিমলা উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুস সরকার প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ ঘোষণা করেন। প্রতীক বরাদ্দের সময় প্রত্যেক ইউনিয়নের প্রার্থী ও কর্মী সমর্থক এর মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা গেছে।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে,খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪জন, সংরক্ষিত (মহিলা) ওয়ার্ড সদস্য পদে ১১জন, সাধারণ ওয়ার্ড সদস্য পদে ২৯জন।

গয়াবাড়ী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, সংরক্ষিত (মহিলা) ওয়ার্ড সদস্য পদে ১১জন, সাধারণ ওয়ার্ড সদস্য পদে ৩৩ জন।

টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫জন, সংরক্ষিত (মহিলা) ওয়ার্ড সদস্য পদে ৯জন ও সাধারণ ওয়ার্ড সদস্য পদে ৩১জন প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়।

খগা খড়িবাড়ী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ আনোয়ার হোসেন (মটর সাইকেল), আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম (নৌকা), মোঃ রফিকুল ইসলাম (আনারস) ও বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ রবিউল ইসলাম লিথন (চশমা)।

 

গয়াবাড়ী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ আনোয়ারুল হক (ঘোড়া), আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোঃ আমজাদ হোসেন সরকার (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ কামরুজ্জামান (চশমা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. রুকুনুজ্জামান (মোটরসাইকেল), মো. লুৎফর রহমান (টেবিল ফ্যান), মোঃ শরীফ ইবনে ফয়সাল মুন (আনারস) ও বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ সামছুল হক (অটোরিক্সা)।

টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ আফছার আলী (মটরসাইকেল), বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ ময়নুল হক (চশমা), আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোঃ রফিকুল ইসলাম (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ রবিউল ইসলাম সাহিন (আনারস) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ হারুনুর রশিদ।

সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও গয়াবাড়ি, টেপাখরিবাড়ি ও খগা খরিবাড়ি ইউপি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আব্দুল কুদ্দুস সরকার রংপুর টাইমসকে বলেন, উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে বিভিন্ন পদে বৈধ ১৩৯ জন প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ শেষ হয়েছে। এখন প্রার্থী তার নির্বাচনী এলাকায় নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগ চালাতে পারবেন। যদি কোন প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন হয়, তাহলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2024 Rangpurtimes24.Com
Developed BY Rafi IT